বুধবার ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সোনাতলায় পারিবারিক কলহে দুই সন্তানের জননীর আত্মহত্যা

রিমন আহম্মেদ বিকাশ, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার   শনিবার, ২৩ জুলাই ২০২২
140 বার পঠিত
সোনাতলায় পারিবারিক কলহে দুই সন্তানের জননীর আত্মহত্যা

বগুড়ার সোনাতলায় পারিবারিক কলহের জেরে দুই সন্তানের জননী জাহানারা বেগম(৪৫) বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ২২ জুলাই শুক্রবার বিকেলে উপজেলার দিগদাইড় ইউনিয়নের বারঘড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জাহানারা বেগম ওই গ্রামের বেলাল হোসেনের প্রথম স্ত্রী। খবর পেয়ে সোনাতলা থানা পুলিশ রাতেই লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আজ শনিবার ময়নাতদন্তে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

সরেজমিনে গেলে স্থানীয়রা জানান, উপজেলার বারঘরিয়া গ্রামে বেলাল হোসেন দুই বিয়ে করেছেন। প্রথম স্ত্রী জাহানারা বেগমকে বিয়ে করার পর তাদের ঔরশে এক ছেলে ও এক মেয়ের জন্ম হয়। এরপর বেলাল হোসেন দ্বিতীয় বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই বেলাল ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী ধলি বেগম বিভিন্ন ভাবে কারণে-অকারণে গালাগালিসহ শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। প্রথম স্ত্রী জাহানারা দু’টি সন্তানের মুখের দিকে চেয়ে সকল নির্যাতন মুখ বুজে সহ্য করে আসছিল। এক পর্যায়ে ২১জুলাই বৃহস্পতিবার আবারও তাদের মধ্যে ঝগড়া-ঝাটি হলে স্বামী বেলাল হোসেনের সহযোগিতায় সতীন ধলি বেগম জাহানারাকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজসহ মারপিট করে। জাহানারা বিষয়টি গ্রামের মাতামুরব্বীসহ সাবেক ইউপি সদস্যকে অবগত করে সুষ্ঠ বিচার দাবি করেন।


২২ জুলাই শুক্রবার জুম্মার নামাজ শেষে মিমাংসার লক্ষে সাবেক ইউপি সদস্যসহ গ্রামের মাতামুরব্বীরা বেলালের বাড়িতে বৈঠকে বসেন। উভয়ের কথাবার্তা শোনার পর বৈঠকের লোকজন দ্বিতীয় স্ত্রী ধলি বেগমকে প্রথম স্ত্রী জাহানারা বেগমের হাত ধরে ক্ষমা চাইতে বলেন। ধলি বেগম জাহানারার কাছে ক্ষমা চাইতে অপারগতা জানিয়ে বৈঠক থেকে চলে যায়। বৈঠকের লোকজনকে এভাবে অমান্য করে যাওয়ার বিষয়টি বেলালকে বললে,সে এ বিষয়ে কোন কথা না বলে চুপচাপ থাকে। এক পর্যায়ে বৈঠকের লোকজনও যার যার মনে চলে যায়। এরপর স্বামী সতীন মিলে জাহানারাকে গালাগালি করে তার শয়ন ঘরে তালা লাগিয়ে দেয়। এভাবে স্বামী সতীনের জ্বালা সইতে না পেরে জাহানারা রাগে অভিমানে বিষপান করে। তার অবস্থা আশঙ্খাজনক দেখে তাকে অপরিচিত সিএনজি যোগে সোনাতলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এরপর জাহানারার লাশ বাড়িতে ফেলে রেখে স্বামী সতীন পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে জাহানারার ভাই ও মেয়ে জানান, দ্বিতীয় বিয়ে করার পর থেকে বেলাল ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী ধলি বেগমের নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই পেতেই জাহানারা আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। তারা এর সুষ্ঠ বিচার দাবি করেছেন।


এ ব্যাপারে সাবেক ইউপি সদস্য লুৎফর রহমান শিবলু জানান, ঘটনার দিন জুম্মার নামাজ শেষে ওই বাড়িতে বসা শালিস বৈঠকে, জাহানারাকে স্বামী সতীনের নির্যাতন করার বিষয়টি উঠে এসেছে। শালিসের লোকজন বিষয়টি নিরসনের লক্ষে দ্বিতীয় স্ত্রী ধলিকে জাহানার হাত ধরে ক্ষমা চাইতে বললে ধলি অমান্য করে শালিস থেকে চলে যায়।

বিষয়টি নিয়ে সোনাতলা থানা অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীনের সাথে কথা বললে তিনি আলোকিত বগুড়া’কে জানান, মৃতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অস্বাভাবিক মৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। ময়না তদন্তের ফলাফল হাতে পৌছিলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


Facebook Comments Box

Posted ৯:০০ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২৩ জুলাই ২০২২

Alokito Bogura। Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

অস্থায়ী অফিস:

তালুকদার শপিং সেন্টার (৩য় তলা),

নবাববাড়ি রোড, বগুড়া-৫৮০০।

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

মুঠোফোন: ০১৭৫০ ৯১১ ৮৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!