রবিবার ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সারিয়াকান্দির ঘানি টানা সেই দম্পতিকে অটোরিকশা দিলো র‌্যাব

সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪
64 বার পঠিত
সারিয়াকান্দির ঘানি টানা সেই দম্পতিকে অটোরিকশা দিলো র‌্যাব

সারিয়াকান্দির ঘানি টানা সেই দম্পতিকে অটোরিকশা দিলো র‌্যাব

দীর্ঘ ৯ বছর ধরে নিজেদের কাঁধে জোয়াল নিয়ে তেলের ঘানি টেনে সরিষার তেল বের করে আসছেন বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার ভেলাবাড়ী ইউনিয়নের ছাইহাটা গ্রামের ষাটোর্ধ্ব দুদু প্রামাণিক ও তার স্ত্রী হালিমা বেগম। প্রতিদিন টানা চার ঘণ্টা ঘানি টেনে সাত কেজি সরিষা থেকে ফোঁটায় ফোঁটায় পাওয়া যায় পৌনে দুই লিটার তেল। এই তেল বাজারে বিক্রি করে কোনোমতে চলে তাদের সংসার।


সোমবার (২৫ মার্চ) বিকেলে বগুড়া র‍্যাব ক্যাম্প অফিসে অসহায় এই বৃদ্ধ দম্পতিকে একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা তুলে দিয়েছেন র‍্যাব-১২ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মারুফ হোসেন।

এ সময় অধিনায়ক মারুফ বলেন, ‘আমরা সব সময় পরিবারটির পাশে থাকব। ’ এছাড়া দুদু মিয়ার নাতির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে থ্যালাসেমিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে সহায়তা করার কথাও জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।


দুদু প্রামাণিক জানান, তিনি তিন মেয়ে ও এক ছেলের বাবা। এই পেশা তাদের বাপ-দাদার আমলের। তাদের আগে ছিল গোয়ালভরা গরু, বসতভিটাসহ বেশ কিছু কৃষিজমি। অনেক আগেই বাঙালি নদী ভাঙনের শিকার হন তিনি। সামান্য জমি কিনে ছাইহাটা গ্রামে বসবাস শুরু করেন। একমাত্র ছেলে মানিক প্রামাণিকও অভাবী। ছেলের ঘরের সাত বছরের এক নাতি দুরারোগ্য রোগে ভুগছে। প্রতিমাসে তাকে রক্ত দিতে হয়। নাতির চিকিৎসাসহ, সংসারের অভাব-অনটনে ঘানি টানতে গিয়ে ও মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার সময় শেষ সম্বল ভিটেমাটিটুকু বিক্রির পর ঋণ পর্যন্ত করতে হয়েছে তার। এক পর্যায়ে তিনি নিজেই গরুর বদলে তেলের ঘানির জোয়াল কাঁধে নেন। সারাদিন যা তেল পান তা বাজার বা গ্রামে বিক্রি করে চলে তার সংসার। এ কাজে তার স্ত্রী হালিমা বেগম তাকে সহযোগিতা করেন। তিনিও কাঁধে জোয়াল নিয়ে তেলের ঘানি টানেন।

তিনি আরও জানান, অনেক চেষ্টা করেও গরু কিনতে না পেরে জীবন বাঁচানোর তাগিদে স্বামী-স্ত্রী মিলে শুরু করেন ঘানি টানার কাজ। প্রতিদিন ছয় থেকে সাত কেজি সরিষা ভেঙে পৌনে দুই লিটার তেল তৈরির পর বাজারে বিক্রি করে যা টাকা পান, তা দিয়ে কষ্টে চলে তাদের সংসার। এ বয়সে আর পারি না। তার পরও পেটের দায়ে করতে হয়। তাদের দুঃখ-দুর্দশা দেখে একই গ্রামের বাসিন্দা ফজর আলী দুদু মিয়াকে বসবাস করার জন্য সামান্য জায়গা দিয়েছেন। সেখানেই তারা বসবাসের পর কাঠের ঘানি টেনে তেল তৈরির কাজ করে কষ্টে দিনাতিপাত করে আসছেন তারা।


দুদু প্রামাণিকের স্ত্রী হালিমা বেগম জানান, প্রতিদিন ঘানি টানার ফলে অসুস্থ হয়ে পড়ি। রান্নাবান্না করতে পারি না। পা ফুলে যায়। চোখে ঝাপসা দেখি। গ্রামে ঘুরে সরিষা কেনা, তা দিয়ে ঘানি ঘুরিয়ে পাওয়া তেল, খৈল বাজারে বিক্রি করে সামান্য লাভে অভাব দুর হয় না।

প্রতিবেশীরা জানান, দুদু প্রামাণিক ও তার স্ত্রীর মতো দুর্ভাগা এই গ্রামে আর নেই। ঘানি টানলে খাবার জুটে, না টানলে অনাহার থাকে পরিবারটি।

উল্লেখ্য, গত ১৯ মার্চ জগলুল আহসান নামে অবসরপ্রাপ্ত এক সেনা কর্মকর্তা তাকে একটি গরু কিনে দিয়েছেন এবং তেলের ঘানিটি মেরামত করতে নগদ অর্থ প্রদান করেন। তবে গরু দিয়ে এখনও ঘানি টানা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। গরুটিকে ঘানি টানার জন্য প্রস্তুত করতে আরও সময় লাগবে।

Facebook Comments Box

Posted ৯:০২ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪

Alokito Bogura || Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

উপদেষ্টা:
শহিদুল ইসলাম সাগর
চেয়ারম্যান, বিটিইএ

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশক:
এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ
বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক: মোঃ সাজু মিয়া

বার্তা, ফিচার ও বিজ্ঞাপন যোগাযোগ:
+৮৮০ ৯৬ ৯৬ ৯১ ১৮ ৪৫
হোয়াটসঅ্যাপ ➤০১৭৫০ ৯১১ ৮৪৫
ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!