বুধবার ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সারিয়াকান্দিতে যমুনায় পাহাড়ীঢলে পানি বৃদ্ধির কারনে নদী ভাঙ্গনের আতঙ্কে হাজার হাজার মানুষ

জাহাঙ্গীর আলম, সারিয়াকান্দি (বগুড়া) প্রতিনিধি   বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১
207 বার পঠিত
সারিয়াকান্দিতে যমুনায় পাহাড়ীঢলে পানি বৃদ্ধির কারনে নদী ভাঙ্গনের আতঙ্কে হাজার হাজার মানুষ

সারিয়াকান্দির যমুনা নদীর গজারিয়া চরে আনছার আলী সর্দার ঢলের পানি উঠায় আধাপাকা বোরোধান কেটে নিচ্ছেন। ছবি-আলোকিত বগুড়া'র প্রতিনিধি।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানিতে বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলায় যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। পানি বৃদ্ধির কারনে যমুনাপাড়ের কামালপুর এলকায় যমুনা নদীতে আবারো নতুন করে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এখন পর্যন্ত ভাঙ্গন ঠেকানোর জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় স্থানীয়দের মনে অজানা আতঙ্ক দানা বেঁধেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, যমুনার উজানে তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র, দুধকুমুর সহ বেশ কয়টি নদীর উৎসস্থল ভারতের পাহাড়ী এলকায়। এসব এলকায় এখন পাহাড়ের গা বেয়ে ঢলের পানি নামছে। এ পানি নামার ফলে সারিয়াকান্দির কাছে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে।


পানি বৃদ্ধির কারনে চালুয়াবাড়ী, কাজলা, হাটশেরপুর, কর্ণিবাড়ী ও বোহাইল ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার মানুষ দীর্ঘ দিন পর নদীতে পানি পেয়ে ফসল ফলানোর জন্য জমিতে মনের আনন্দে সেচ দিতে শুরু করেছেন। এর মধ্যই পাট, কাউন, আউশ ধান, ভুট্টো ও বিভিন্ন রকমের শাকসব্জির জমিতে নতুন পানির ছোয়া পেয়ে তরতর করে বেড়ে উঠছে ফসলগুলো। তবে একেবারে নিচু এলাকায় প্রায় ৫০বিঘা জমির বোরো ধান পানিতে তলিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

অপরদিকে গত শীত মৌসুমে সারিয়াকান্দির কামালপুর ইউনিয়নের টিটুর মোড় থেকে শুরু করে কামালপুর ফকিরপাড়া, দড়িপাড়া, রৌহদহ, হাওড়াখালী, গোদাখালী ও ইছামারা এলাকায় যমুনা নদীর বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। অসময়ে ভাঙ্গনের কারনে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক নির্মিত স্পার-বাঁধ ভাঙ্গনের মুখে পরেছে। তবে সে ভাঙ্গন ঠেকাতে পানি উন্নয়ন বোর্ড এখন পর্যন্ত কোনো দৃশ্যমান পদক্ষেপ না নেওয়ায় এ এলাকার হাজার হাজার মানুষের মনে অজানা আতঙ্ক দানা বেধেঁছে। বিশেষ করে চন্দনবাইশা, ভেলাবাড়ী ও কামালপুর ইউনিয়নের প্রায় ২৫হাজার মানুষ ভাঙ্গন আতঙ্কে রয়েছে।


গজারীয়া চর গ্রামের কৃষক আনছার আলী সর্দার আলোকিত বগুড়া‘র প্রতিনিধিকে বলেন, পানিতো বাড়ছে চৈত্র মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে। সেই থেকে একটু-আদটু করে পানি বাড়ছেই। তবে এখন বাড়ছে হাতে হাতে। কাল যেখানে ছিলো বালু চর আজ সেখানে ঢলের পানি চলছে।

স্থানীয় সাংবাদিক মাইনুল হাসান আলোকিত বগুড়া‘র প্রতিনিধিকে বলেন, এ এলাকায় যমুনা নদীর ভাঙ্গনতো প্রায় ৫মাস পূর্বেকার। দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেলেও পানি উন্নয়ন বোর্ড কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় মানুষের চোখে-মুখে হতাশার ছাপ বিরাজ করছে। উচিত সঠিকভাবে নদীর কাজ করে মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।


এ ব্যাপারে পানি উন্নয় বোর্ডের সারিয়াকান্দির উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (এস.ডি.ই) আব্দুর রহমান তাশকিয়া আলোকিত বগুড়া‘র প্রতিনিধিকে বলেন, যমুনায় পানি বাড়ছে এমন খবর আজ আমাদের হতে আসেনি। তবে পানি বাড়ছে শুনেছি। ৪/৫ দিন হলো কাজতো আমরা শুরু করেছি। প্রায় ৪ হাজার বালুর বস্তা এরইমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই সেগুলো ভাঙ্গন স্থানে ফেলা হবে। তবে এটি অস্থায়ী কাজ। স্থায়ীভাবে নদী ভাঙ্গন রোধ করার জন্য প্রকল্প গ্রহণের জন্য কাজ চলছে।

Facebook Comments Box

Posted ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১

Alokito Bogura। সত্য প্রকাশই আমাদের অঙ্গীকার |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

“ঈদ মোবারক”
“ঈদ মোবারক”

(482 বার পঠিত)

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

০১৬ ১০ ৯১ ১৮ ৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।। তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
''আলোকিত বগুড়া'' সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক বগুড়া থেকে প্রকাশিত।
error: Content is protected !!