সোমবার ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

শিবগঞ্জে কোরবানির ঈদ সামনে রেখে লাল আগুনের লোহায় পিটুনিতে সরগরম হয়ে উঠেছে কামার পল্লী

সাজু মিয়া, শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি   রবিবার, ১৮ জুলাই ২০২১
74 বার পঠিত
শিবগঞ্জে কোরবানির ঈদ সামনে রেখে লাল আগুনের লোহায় পিটুনিতে সরগরম হয়ে উঠেছে কামার পল্লী

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় ঈদের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে কামার শিল্পীদের ব্যস্ততা। পশু কুরবানিতে ধারালো দা, বটি, চাপাতি ও ছুরি তৈরি করছে হরদম। তাই যেন দম ফেলারও সময় নেই কামারদের। নাওয়া-খাওয়া ভুলে কাজ করছেন কামাররা। কাক ডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করে যাচ্ছেন তারা। সারা বছর তেমন কাজ না থাকলেও কুরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে কয়েকগুণ ব্যস্ততা বেড়ে গেছে কামারদের।

কুরবানিকে সামনে রেখে ক্রেতারাও ভীড় জমাচ্ছেন কামার পট্টিতে। বিক্রিও হচ্ছে চড়া দামে। কামার শিল্পীরা জানান, পশুর চামড়া ছাড়ানো ছুরি ১০০ থেকে ২০০, দা ২০০ থেকে ৩৫০ টাকা, বটি ২৫০ থেকে ৫০০, পশু জবাইয়ের ছুরি ৩০০ থেকে ১ হাজার টাকা, চাপাতি ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পশু জবাইয়ের সরঞ্জামাদি কিনতেও লোকজন ভিড় করছেন অনেকেই। কামারদের অভিযোগ কুরবানির ঈদ উপলক্ষে কয়লার দাম ও শ্রমিকদের দাম বেড়ে গেছে। তবে ক্রেতাদের অভিযোগ ঈদ উপলক্ষে দা, চাপাতি ও ছুরির দাম বেশি নেয়া হচ্ছে।


ক্রেতা শাহিনুর ইসলাম বলেন, আমি একটি দা ৫০০ টাকা দিয়ে কিনেছি। এ ছাড়া ছুুরি, দা জবাই করার ছুরি সহ ৩টি জিনিস রিপেরিয়ারিং করার জন্য এসেছি। ঈদ যতই এগিয়ে আসছে দা/ছুরি কিনতে ক্রেতাদের আনাগোনাও বাড়ছে। কামারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কুরবানির ঈদ উপলক্ষে তাদের বেচাকেনা দ্বিগুণ বেড়ে গেছে। তবে ঈদের দুদিন আগে থেকে রাত-দিন ২৪ ঘন্টা বেঁচাকেনা হবে। কুরবানির ঈদ উপলক্ষে কয়লা ও শ্রমিকেদর মূল্য বেড়ে গেছে। দুই মাস আগেও প্রতি বস্তা কয়লার দাম ছিল ৪শত থেকে ৪৫০ টাকা। সেই কয়লার এখন ৮শ থেকে ৮৫০ টাকায় কিনতে হচ্ছে তাই তারা চাপাতি, ছুরি ও দায়ের দাম একটু বেশি নিচ্ছেন।

শিবগঞ্জ উপজেলার নাগর বন্দর, উথলী নারায়নপুর, আচলাই কামার, সংসারদিঘী, নিমতলা কামার পাড়া ঘুরে দেখা যায় লাল আগুনের লোহায় পিটুনিতে সরগরম হয়ে উঠেছে কামার পল্লী/দোকান গুলো। টুংটাং শব্দের ছন্দে তালমিলিয়ে চলছে হাতুড়ি আর ছেনির কলা কৌশল। ঈদুল আজহার আর মাত্র কয়েকদিন বাকি আছে তাই কামার পল্লী গুলো মুখরিত হয়ে উঠেছে। ঈদের বিপুল চাহিদার জোগান দিতে এক মাস আগে থেকেই কাজ শুরু হয়েছে।


একই ধরনের কথা জানানন উপজেলার প্রদীপ, মানিক, খগেন, যগেন। তারা আরো বলেন, কাজের ব্যস্ততায় নিশ্বাস ফেরার সময় নেই। তারা পুরোদমে আগামী ২০ জুলাই ঈদুল আযহা পর্যন্ত কাজ চলিয়ে যাবেন বলে জানান। ডিজিটাল প্রযুক্তির প্রসার ঘটায় ক্রমে বিলুপ্তির পথে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী কামার শিল্প।

Facebook Comments Box


Posted ১২:২৪ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ১৮ জুলাই ২০২১

Alokito Bogura। সত্য প্রকাশই আমাদের অঙ্গীকার |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

“ঈদ মোবারক”
“ঈদ মোবারক”

(498 বার পঠিত)

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

০১৭ ৫০ ৯১ ১৮ ৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।। তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
''আলোকিত বগুড়া'' সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক বগুড়া থেকে প্রকাশিত।
error: Content is protected !!