সোমবার ৪ঠা জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

বগুড়ায় বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে...

যুদ্ধ করেই সরকারের পতন ঘটাতে হবে- বগুড়ায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

মোঃ দৌলত জামান, স্টাফ রিপোর্টার   শুক্রবার, ১১ মার্চ ২০২২
39 বার পঠিত
যুদ্ধ করেই সরকারের পতন ঘটাতে হবে- বগুড়ায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েস্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, সরকারের আর বেশিদিন সময় নেই। সত্যের জয় হবেই। ভয়ের কোন কারণ নেই। বিএনপির দায়িত্ব দেশের স্বাধীনতা স্বার্বভৌমত্ব রক্ষা ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা এবং মানুষের ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা। তাই যুদ্ধ করেই সরকারের পতন ঘটাতে হবে। সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামিয়ে দেখাতে আমরা জিয়ার সৈনিক । দুঃশাসন, দুর্নীতি থেকে জনগনকে রক্ষা করতে হবে।

তিনি শুক্রবার সকালে বগুড়া সদরের বাঘোপাড়া শহীদ দানেশ উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি বগুড়া সদর উপজেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।


তিনি বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির ফলে সাধারণ মানুষের জীবন হয়ে গেছে অতিষ্ট, গৃহযুদ্ধ আসন্ন। মিথ্যা মামলা দিয়ে অনেককে জেলে নেওয়া হয়েছে। হয়তো আমাদেরও জেলে দেবেন, সাজা দেবেন। তারপরও সরকারের শেষ রক্ষা হবে না এটা গ্যারান্টি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য আরও বলেন, সরকারি দলের লোকদের বলব, ভালো হয়ে যান। ভোটাধিকার ফেরত দিন। দেশে যদি এত উন্নয়ন করেন তাহলে জনগণের কাছে যেয়ে ভোট চাইতে ভয় পান কেন। কারণ, উন্নয়নের নামে জনগণের পকেট কেটেছেন। উন্নয়নের নামে জনগণকে ভোটাধিকার বঞ্চিত করেছেন। তাই জনগণের মন আজ বিক্ষুব্ধ, উত্তপ্ত। যে কোনো মুহূর্তে বিস্ফোরণ ঘটবে। এই বিস্ফোরণ ঠেকিয়ে রাখার ক্ষমতা এই সরকারের নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এখনও সময় আছে বেলা থাকতে ঘরে যান, সময় থাকতে আত্মসমর্পণ করুন। দেশে যদি থাকতে চান তাহলে দেশবাসীর কাছে কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চান। সোজা কথায় ক্ষমতা ছেড়ে দিন, গণতন্ত্রের পথে আসুন। নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, মরার জন্য প্রস্তুতদের কেউ মারতে পারে না। চলমান আন্দোলন, লড়াই-সংগ্রামের মাঝপথে ছেড়ে যাব না, বিজয় নিশান উড়াব।


তিনি বলেন, বর্তমান আ.লীগ সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বিধায়, তাদের কোনো দায়বদ্ধতা নেই। আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই জনগণের বিরুদ্ধে গিয়ে অতীতে কোনো সরকার টিকতে পারে নাই, আওয়ামী লীগ সরকারও টিকতে পারবে না। তাই নতুন নেতৃত্ব আগামীদিনের আন্দলোন বেগবান করবে। দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আর একবার যুদ্ধ করতে হবে। বিএনপির চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া, তিন বারের প্রধানমন্ত্রী, মানুষের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের প্রতীক, স্বাধীনতা-সার্বেভৌমত্বে প্রতীক। বেগম খালেদা জিয়া এই দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য, আপসহীন ভূমিকার জন্য দেশের মানুষ তার মুক্তি চায়। দেশ ও দেশের মানুষকে এই অবৈধ সরকারের হাত থেকে রক্ষা করতে তারেক রহমানের নেতৃত্বেই আগামীতে গণতন্ত্র ফিরবে।

দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক ও বগুড়া পৌর মেয়র রেজাউল করিম বাদশা। দীর্ঘ ১১ বছর পর অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে উপজেলার ১১টির মধ্যে ১০ ইউনিয়নের ৭১০জন কাউন্সিলরসহ কয়েক হাজার নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষ উপস্থিত ছিলেন। দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক আলী আজগর তালুকদার হেনা।


সদর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট সোলায়মান আলীর সভাপতিত্বে দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বগুড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কৃষক দল কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাবেক এমপি মোঃ হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু , বিএনপির চট্রগাম বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামিম, সিলেট বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ সাখাওয়াত হাসান জীবন, কুমিল্লা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া, বরিশাল বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট বিলকিস আক্তার জাহান শিরীন, ফরিদপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিসেস শামা ওবায়েদ, ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, রাজশাহী বিভাগের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এ এইচ এম ওবায়দুর রহমান চন্দন, খুলনা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, বগুড়া সদর আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য গোলাম মোঃ সিরাজ, বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম, ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল ও মোশারফ হোসেন এমপি, বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য জয়নাল আবেদীন চাঁন, লাভলী রহমান, বগুড়া জেলা বিএনপির আহŸায়ক কমিটির সদস্য এম আর ইসলাম স্বাধীন, মাফতুন আহমেদ খান রুবেল, জেলা মহিলা দলের সাধারন সম্পাদক নাজমা আকতার, জেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক সরকার মুকুল, জেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী রিগ্যান, বিএনপি নেতা সৈয়দ মাহিদুল ইসলাম গফুর, জহুরুল আলম, শামীম রেজা শামীম প্রমুখ।

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতি সাধারন সম্পাদক সহ ৪টি পদে গোপন ব্যালটে ভোট দিয়ে নেতা নির্বাচন করেন কাউন্সিলররা।

Facebook Comments Box

Posted ৮:৩৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১১ মার্চ ২০২২

Alokito Bogura। Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

অস্থায়ী অফিস:

তালুকদার শপিং সেন্টার (৩য় তলা),

নবাববাড়ি রোড, বগুড়া-৫৮০০।

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

মুঠোফোন: ০১৭ ৫০ ৯১ ১৮ ৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!