বুধবার ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

মামলা থেকে বাঁচতে বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০২২
60 বার পঠিত
মামলা থেকে বাঁচতে বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলায় নির্বাচনী কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপর হামলা, ব্যালট বাক্সসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম ভাঙচুর ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলা থেকে রেহাই পেতে বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছেন এক পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থী। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা শহরের গোরস্থান মোড়ে প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সম্মেলন কক্ষে এরেন্ডাবাড়ি ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বিজয়ী সদস্য প্রার্থী মো. মোমিনুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলন করে এই দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে মোমিনুলের পরিবারের সদস্য শাহিন আলম, শাহআলম, আমিনুল ইসলামসহ প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক্স ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে মোমিনুল ইসলাম উল্লেখ করেন, গত ৫ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ফুলছড়ি উপজেলার এরেন্ডাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী হিসেবে মোরগ প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করি। নির্বাচনে আমি চরচৌমহন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৪৯৫ ভোট ও আনন্দবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৪১ ভোটসহ মোট ৫৩৬ ভোট পাই।


অপরদিকে আমার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী টিউবওয়েল প্রতীকের মো. আবু বক্কর চরচৌমহন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পান ৩৩ ভোট এবং আনন্দবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪৪৭ ভোটসহ মোট ৪৮০ ভোট। আমি আমার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীর থেকে ৫৬ ভোটের ব্যবধানে ইউপি সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হই এবং নির্বাচনী কর্মকর্তারা আমাকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষনা করে ফলাফলপত্র আমার হাতে তুলে দেন।

এর আগে আবু বক্কর ও তার কর্মী-সমর্থকরা ভোট গণনা শেষে নিশ্চিত পরাজয় বুঝতে পেরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও নির্বাচন কর্মকর্তাদের সাথে দ্ব›েদ্ব জড়িয়ে পড়েন। এ সময় ভোটকেন্দ্রে থাকা ব্যালট বাক্সসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম ভাঙচুর ও ছিনতাই করে নিয়ে যায় তারা। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পুলিশ ও নির্বাচনী দায়িত্বে থাকা আনসারসহ সকল কর্মকর্তাদের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় গত ৬ জানুয়ারি লুটপাট, ছিনতাই ও হামলার অভিযোগে ফুলছড়ি থানায় একটি মামলা (মামলা নম্বর- ০৩) দায়ের করেন আনন্দবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো. মহসিন আলী। সেই মামলায় আবু বক্করকে প্রধান আসামী ও ১০জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ২০০ থেকে ২৫০ জনকে আসামী করা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ও মামলা থেকে রেহাই পেতে উপজেলায় জমা দেওয়া আনন্দবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের ফলাফল সঠিক নয় অভিযোগ তুলেছেন। যা আদৌ সঠিক নয়।


তিনি আরও বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর পরাজিত প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী আবু বক্কর হেরে গিয়ে আমার প্রাপ্ত ফলাফলকে প্রশ্নবিদ্ধ করাসহ আমার নামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ভিত্তিহীন ও বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করেছেন। শুধু তাই নয়, সম্মানহানীসহ আমার নামে বিভিন্নভাবে মিথ্যা অপপ্রচার করে বেড়াচ্ছেন। একই সাথে নির্বাচনী ফলাফল ওলটপালট করার অশুভ চেষ্টা করে আমার নামে ভোটের ফলাফল নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করেন। প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীর এমন কর্মকান্ডের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি সেইসাথে এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন মো. মমিনুল ইসলাম।

Facebook Comments Box


Posted ৯:০৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারি ২০২২

Alokito Bogura। Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

অস্থায়ী অফিস:

তালুকদার শপিং সেন্টার (৩য় তলা),

নবাববাড়ি রোড, বগুড়া-৫৮০০।

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

মুঠোফোন: ০১৭৫০ ৯১১ ৮৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!