সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

প্রেমের পর বিয়ের প্রলোভন; তারপর আটকে রেখে টানা দেড় মাস ধরে ধর্ষণ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   শনিবার, ১৯ জুন ২০২১
156 বার পঠিত
প্রেমের পর বিয়ের প্রলোভন; তারপর আটকে রেখে টানা দেড় মাস ধরে ধর্ষণ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে প্রেমের পর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে (২২) তুলে এনে টানা দেড় মাস আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে। একইসাথে তাকে মারপিট ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার (১৮ জুন) নির্যাতিতার মা বাদী হয়ে চারজনকে অভিযুক্ত করে সুন্দরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

অপহরণ, ধর্ষণ, ধর্ষণের চেষ্টা ও সহায়তা করার অপরাধে অভিযুক্ত ওই চার ব্যক্তি হলেন, উপজেলার রামজীবন ইউনিয়নের পশ্চিম রামজীবন গ্রামের মৃত ঠ্যাংভাঙ্গা জামালের ছেলে আব্দুল মোত্তালেব (৩৬), মৃত আমির উদ্দিনের ছেলে হায়দার মেম্বার (৫০), তালুক বাজিত গ্রামের ইসি আকন্দের ছেলে আব্দুল মতিন (৫২) ও পশ্চিম রামজীবন গ্রামের মৃত মছির উদ্দিনের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন (৪৫)। শনিবার বিকেলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ মামলায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।


মামলা ও ঘটনাস্থল সূত্রে জানা গেছে, মামলার ১নম্বর আসামি আব্দুল মোত্তালেব ১৬ বছর বয়সের ওই পরিচ্ছন্নতাকর্মীর সাথে মোবাইল ফোনে পরিচয় এবং শেষে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। সেই সুবাদে গত ১২ এপ্রিল মোবাইল ফোনে ধনিয়ারকুড়া বাজারের পাশে তাকে ডেকে নেন এবং বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে তুলে নিয়ে আসামি আব্দুল মোত্তালেব তার বাড়িতে এনে আটকে রেখে ধর্ষণ করেন। গত ১৭ মে মোত্তালেব ওই পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে ঢাকায় নিয়ে যান। সেখানেও বাসা ভাড়া নিয়ে অবস্থান করে তাকে ধর্ষণ করেন।

টানা দেড় মাস ধর্ষণের পর গত ১৩ জুন আব্দুল মোত্তালেব ঢাকা থেকে ফিরে গাইবান্ধা সদর উপজেলার লক্ষীপুর বাজারে নির্যাতিতা মেয়েটিকে রেখে কৌশলে পালিয়ে যান। নিরুপায় হয়ে পরিচ্ছন্নতাকর্মী ওই নির্যাতিতা ধনিয়ারকুড়া বাজারে এসে মায়ের সহযোগিতায় স্থানীয় এক খলিফার বাড়িতে উঠেন। কিন্তু লোকজন জানতে পেরে ওই বাড়িতে থাকতে না দেয়ায় পরদিন ১৪ মে হায়দার মেম্বারের বাড়িতে রাখা হয়। ওইরাতে হায়দার মেম্বার নিজেই আশ্রিত নির্যাতিতা মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান।


কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে ধনিয়ারকুড়া বাজারের নাইটগার্ড আব্দুল মতিনের কাছে সাহায্য চাইলে মোফাজ্জলের বাড়িতে আশ্রয় দেয়ার কথা বলে নিয়ে যাওয়ার সময় নাইটগার্ড আব্দুল মতিনও ওই নির্যাতিতাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান।

এরপর মোফাজ্জলের বাড়িতে আশ্রয় দেয়া হলে পরের রাতে মোফাজ্জলও নির্যাতিতা ওই পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। ভোর রাতে কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে আবারও ধনিয়ারকুড়া বাজারে আসে ওই পরিচ্ছন্নতাকর্মী। পরে তার মা এলাকায় বিচার চাইলে শালিস বৈঠকে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।


এরপর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে গতকাল শুক্রবার তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায় পুলিশ এবং রাতেই নির্যাতিতা ওই পরিচ্ছন্নতাকর্মীর মা বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আসামি গ্রেফতারে পুলিশ ব্যাপক তৎপর রয়েছে।

Facebook Comments Box

Posted ৮:৪৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

Alokito Bogura। সত্য প্রকাশই আমাদের অঙ্গীকার |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

০১৭৫০ ৯১১৮৪৫, ০১৬১০ ৯১১৮৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
''আলোকিত বগুড়া'' সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক বগুড়া থেকে প্রকাশিত।
error: Content is protected !!