মঙ্গলবার ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

পাঁচবিবিতে সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রমুলক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৩
168 বার পঠিত
পাঁচবিবিতে সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রমুলক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

পাঁচবিবিতে ‘পামডো’ সংস্থার সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রে মুলক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকেলে পাঁচবিবি পাঁচমাথায় পামডোর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পামডোর নির্বাহী পরিচালক হৈমন্তী সরকার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আদিবাসি নেতা ও অবসর প্রাপ্ত মেডিক্যাল অফিসার এবং পামডোর সাবেক সভাপতি ডা. দ্বিজেন্দ্রনাথ সরকারসহ পামডো সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ।


লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন “ চাতুর্যের সাথে কতিপয় দুষ্কৃতিকারী কর্তৃক “পামডো” সংস্থার পূর্বনাম ব্যবহার করে অত্র অঞ্চলে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠী জনগণেরর মধ্যে বিভেদ ও বিশৃঙ্খলার উদ্দেশ্যে জয়পুরহাট-১ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয়, জয়পুরহাট জেলার সম্মানিত জেলাপ্রশাসক মহোদয়, পাঁচবিবি উপজেলার সম্মানিত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয় সহ উপজেলার সম্মানিত নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিগণের নাম ব্যবহার করে ‘পামডো’ সংস্থার ভূ-সম্পত্তি দখলের ষড়যন্ত্র বিষয়ে আমাদের বক্তব্যঃ হচ্ছে, পামডোর পূর্বনাম “পাঁচবিবি উপজেলা আদিবাসী বহুমুখী উন্নয়ন সংস্থা” এবং বর্তমান নাম ‘পামডো’।

১৯৭৮ সালে আমাদের সংস্থা বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদফতর হতে “পাঁচবিবি উপজেলা আদিবাসী বহুমুখী উন্নয়ন সংস্থা” নামে ১৮৮/৭৮ নম্বর সনদপ্রাপ্ত হয় এবং ২৮-১১-২০০৫ ইং পর্যন্ত এই নামে কার্যক্রম পরিচালনা করে। (সংযুক্তি-১) অত্র এলাকার ক্ষুদ্র নৃ- জনগোষ্ঠীর জনগণের উন্নয়নের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার প্রকল্প প্রয়োজনে পরবর্তীতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তরের অনুমোদনে একই সনদ নম্বরের (১৮৮/৭৮) অধীনে Panchbibi Upazilla Adbasi Multipurpose Development Organization (PUAMDO)Ó নামে ২৯-১১-২০০৫ ইং তারিখ হতে ১৬/০১/২০১৩ ইং তারিখ পর্যন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশের সকল সংস্থার নামে “আদিবাসী” শব্দটি ব্যবহার না করার জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক নির্দেশ আসে। আইন ও সরকারী নির্দেশের প্রতি পূর্ণসম্মান রেখে নাম থেকে আদিবাসী শব্দটি বাদ দেয়া হয় এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদফতরের অনুমোদনে একই সনদ নম্বরের (১৮৮/৭৮) অধীনে ÒPeoples Union of the Marginalized Development Organization (PUMDO)Ó নামে ১৭/০১/২০১৩ ইং তারিখ হতে অদ্যাবধি কার্যক্রম পরিচালনা করে চলেছে। আমি হৈমন্তী সরকার, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, পামডো ১৪/০৪/২০২৩ ইং তারিখে সুদর্শন সরকার এর স্বাক্ষরিত এই ষড়যন্ত্রের নীলনকশার আমন্ত্রণপত্র ফেইসবুকে মেরিন এক্কার ব্যক্তিগত প্রোফাইলে দেখতে পেয়েছি। অথচ, পামডো সংস্থার (পূর্বনাম “পাঁচবিবি উপজেলা আদিবাসী বহুমুখী উন্নয়ন সংস্থা”) কেউই এই সভার কথা জানেন না। বলাই বাহুল্য, সভার আয়োজকগণ ‘পামডো’ সংস্থার কোন পূর্বাপর অনুমতি গ্রহণ করেন পনি। পামডো সংস্থার পূর্বনাম ব্যবহার করার জন্যও নয়, পামডো সংস্থার ভূমি ব্যবহার করার জন্যও নয়। উক্ত আমন্ত্রণ পত্রের দ্বিতীয় লাইনে “পাঁচবিবি উপজেলা আদিবাসী বহুমুখী উন্নয়ন সংস্থা” পুনরিজ্জীবিত করার কথায় সংস্থার সাধারণ ও কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যগণ এবং আমি সহ আমাদের সংস্থার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের মাঝে তীব্র আতংক ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। তথাকথিত ঐ ‘জনসভার’ স্থান “পামডো” সংস্থার নিজস্ব ভুমি নির্ধারণ করায় ‘পামডো’ সংস্থার প্রায় ২০০০ ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠী উপকারভোগি পরিবার অত্যন্ত উৎকণ্ঠিত হবেন, এটি অবশ্যম্ভাবী। অনুমতিবিহিন ভাবে জোরজবরদস্তি করে পামডো সংস্থার পূর্বনাম এবং মাননীয় সংসদ সদস্য ও সম্মানিত সরকারী কর্মকর্তাগণের নাম বিভ্রান্তিমূলকভাবে ব্যবহার করে ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠী জনগণের মাঝে বিভেদ ও বিশৃঙ্খলার মাধ্যমে পামডো সংস্থা এবং এর ভূ-সম্পত্তি দখলের যে ষড়যন্ত্রমূলক আয়োজন করা হয়েছে, আমরা বিশ্বাস করি যে, আমন্ত্রিত অতিথিগণ এসব ঘৃণ্য ও ন্যাক্কারজনক ষড়যন্ত্র সম্পর্কে অবহিত নন।


পূর্বেও আমাদের সংস্থা দখল করার জন্য ক্রমাগত ষড়যন্ত্র চলেছে। এর কয়েকটি ষড়যন্ত্রের ঘটনা সম্পর্কে আপনারা বিভিন্নভাবে অবগত রয়েছেন। প্রথমত, সামাজিকভাবে আমাদের সংস্থাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে। সংস্থা বন্ধ হয়ে যাবে, সংস্থা ভালোভাবে চলছে না ইত্যাদি বক্তব্য দিয়ে সংস্থার উপকারভোগি সদস্যদের মনোবল দুর্বল করে সংস্থা হতে সঞ্চয় তুলে নেবার আয়োজন তৈরি করা হয়েছে। অতীতেও বেশ কয়েকবার এমন পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে। প্রতিবারই আমরা এর মোকাবেলা করেছি। এভাবে সংস্থাকে পুনরুজ্জীবিত করার বাহানা করে সংস্থাকে দুর্বল করে দখল করবার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।
দ্বিতীয়ত, সংস্থার ভূ-সম্পত্তি দখল করে সংস্থাকে দখল করার চেষ্টা হয়েছে। সংস্থার উচাইস্থ পুকুরের ভুয়া কাগজপত্র নিয়ে মামলা করার কারণে সংস্থা সে পুকুর হতে আর্থিক ফায়দা হতে দীর্ঘদিন বঞ্চিত হচ্ছে। এছাড়াও, জোরজবরদস্তি করে মন্দির স্থাপনা করে সংস্থার ভূ-সম্পত্তি দখল করার চেষ্টা চলেছে।

এছাড়াও, মহান মুক্তিযুদ্ধের নামেও সংস্থার ভূ-সম্পত্তি দখল করার চেষ্টা চলেছে। জোর করে “আন্তর্জাতিক আদিবাসী মুক্তিযোদ্ধা সংসদ-পাঁচবিবি উপজেলা কমান্ড” নামে ব্যানার ঝুলিয়ে সংস্থার কার্যালয় ভবন দখল করার চেষ্টা চলেছে। তৃতীয়ত, ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠীর নাম ব্যবহার করে অত্র এলাকার ক্ষুদ নৃ-জনগোষ্ঠীর সদস্যগণসহ বাকি সবাইকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চলছে। সরকারী কর্মকর্তাগণের নাম ব্যবহার করেও অত্র এলাকার ক্ষুদ নৃ-জনগোষ্ঠীর সদস্যগণসহ বাকি সবাইকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চলছে।


এভাবে বিভিন্নভাবে কখনো পবিত্র ধর্মের নামে, কখনো মহান মুক্তিযুদ্ধের নামে, কখনো ক্ষুদ নৃ-জনগোষ্ঠীর নাম ব্যবহার করে, কখনো সরকারী কর্মকর্তাগণের নাম ব্যবহার করে, কখনো বেআইনিভাবে সংস্থার নাম ব্যবহার করে জনগণকে বিভ্রান্ত করে সংস্থাকে ও সংস্থার ভূ-সম্পত্তি দখল করার ঘৃণ্য ও ন্যাক্কারজনক চেষ্টা চলছে। প্রতিবারই আইনগতভাবে তাদেরকে মোকাবেলা করেছি এবং ভবিষ্যতেও করব। প্রতিবারই তারা ব্যর্থ হয়েছেন, এবং ভবিষ্যতেও হবেন। এ বিষয়ে আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা চাই। লিখিত বক্তব্যের সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় সংযুক্তি মূলক কাগজপত্র সাংবাদিকদের নিকট উপস্থাপন করলাম এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক দপ্তরে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

Facebook Comments Box

Posted ৫:২৮ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৩

Alokito Bogura || Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

উপদেষ্টা:
শহিদুল ইসলাম সাগর
চেয়ারম্যান, বিটিইএ

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশক:
এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ
বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক: মোঃ সাজু মিয়া

বার্তা, ফিচার ও বিজ্ঞাপন যোগাযোগ:
+৮৮০ ৯৬ ৯৬ ৯১ ১৮ ৪৫
হোয়াটসঅ্যাপ ➤০১৭৫০ ৯১১ ৮৪৫
ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!