শুক্রবার ২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

দুপচাঁচিয়ায় প্রতারক ওহাবের বিরুদ্ধে বীরমুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

আবু কালাম আজাদ, দুপচাঁচিয়া (বগুড়া) প্রতিনিধি   বুধবার, ০৯ মার্চ ২০২২
288 বার পঠিত
দুপচাঁচিয়ায় প্রতারক ওহাবের বিরুদ্ধে বীরমুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

 

দুপচাঁচিয়া(বগুড়া) প্রতিনিধিঃ


দুপচাঁচিয়ায় উপজেলা প্রেসক্লাবে বীরমুক্তিযোদ্ধা আয়েজ উদ্দিন  ৯মার্চ বুধবার সকালে প্রেসক্লাব কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে উপজেলার খলিশ্বর গ্রামের আবু বক্কর ছিদ্দিকের ছেলে দাদন ব্যবসায়ী প্রতারক আব্দুল ওহাবের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আমি একজন দরিদ্র ব্যক্তি। বীরমুক্তিযোদ্ধা হওয়ায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সম্মানজনক ভাতা দিয়ে আসছেন।


তারপরেও সাংসারিক খরচের প্রয়োজনে ২০১৯সালের জুন মাসে দাদন ব্যবসায়ী আব্দুল ওহাবের নিকট হতে দুপচাঁচিয়া থানা বাসস্ট্যান্ডে অবস্থিত ওহাবের টাইলস এর দোকানে গিয়ে ৪০,০০০/-(চল্লিশ হাজার) টাকা ধার নেই।

ধার নেওয়া টাকা বাবদ অগ্রণী ব্যাংক লিঃ জিয়ানগর শাখার একটি ফাঁকা চেক ও ১০০টাকার একটি ননজুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে ওহাব আমার স্বাক্ষর নেই। চুক্তি মোতাবেক ধার নেয়া ওই টাকার সুদ বাবদ প্রতিমাসে ৫০০০/-(পাঁচ হাজার) টাকা প্রদান করে আসছি।


গত ১২/১২/২০১৯ইং তারিখে আমি ৩মাসের ভাতা ও ডিসেম্বর মাসের বোনাস সোনালী ব্যাংক দুপচাঁচিয়া শাখা থেকে উত্তোলন করলে দাদন ব্যবসায়ী আব্দুল ওহাব আমার নিকট হতে ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার) টাকা এরকম ছিনিয়ে নিয়ে চেক ও স্ট্যাম্প ফেরত দিতে তাল বাহানা শুরু করে।

তাকে টাকা ফেরত দেয়ার সময় স্বাক্ষী হিসাবে দুপচাঁচিয়া উপজেলার ভেবরা গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা আজিজার রহমান ও ভুঁইপুর গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হোসেন আমার সঙ্গে ছিলেন।

আমি চেক ও স্ট্যাম্প ফেরত দেয়ার কথা বললে ওহাব জানান, এগুলো ফেরত নিতে হলে আরও টাকা দিতে হবে। টাকা পরিশোধ করেও চেক ও স্ট্যাম্প ফেরত না পাওয়ায় আমি এর প্রতিকার চেয়ে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়, বগুড়া জেলা প্রশাসক, বগুড়া পুলিশ সুপার ও দুপচাঁচিয়া থানার ওসি মহোদয় বরাবর আবেদন করেছি।

সেই সঙ্গে আমি আরও জানাচ্ছি যে, উক্ত আব্দুল ওহাব আমার মত একজন নিরীহ ব্যক্তি ও বীরমুক্তিযোদ্ধাকে আদম ব্যবসায়ী বানিয়ে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করেছে।

টাকা ফেরত নিয়ে চেক ও স্ট্যাম্প কুক্ষিগত করে উল্টো আমার বিরুদ্ধে আব্দুল ওহাব তার দোকানের মিস্ত্রী সবুজ মিয়াকে দিয়ে ৩,০০,০০০/-(তিন লক্ষ) টাকা বসিয়ে চেক ডিজঅনার মামলা দায়ের করেছে।

আমি একজন বীরমুক্তিযোদ্ধা হিসাবে বর্তমানে মানসিক চাপের মধ্যে জীবন যাপন করছি। এমতাবস্থায় আমি সংশ্লিষ্টদের নিকট দ্রুত প্রতিকার প্রার্থনা করছি। সংবাদ সম্মেলনে বীরমুক্তিযোদ্ধা আয়েজ উদ্দিনের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বীরমুক্তিযোদ্ধা আলতাব হোসেন।

Facebook Comments Box

Posted ৬:৫৮ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৯ মার্চ ২০২২

Alokito Bogura। Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

অস্থায়ী অফিস:

তালুকদার শপিং সেন্টার (৩য় তলা),

নবাববাড়ি রোড, বগুড়া-৫৮০০।

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

মুঠোফোন: ০১৯৭০ ৯১১৮৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!