বুধবার ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

ইউএনও পরিচয় দিয়ে প্রতারনা মামলায় গ্রেফতার জরিনা 

নিজস্ব প্রতিবেদক, আলোকিত বগুড়া   মঙ্গলবার, ২২ মার্চ ২০২২
110 বার পঠিত
ইউএনও পরিচয় দিয়ে প্রতারনা মামলায় গ্রেফতার জরিনা 

বগুড়ার গাবতলীতে ইউএনও পরিচয় দিয়ে অসহায় মানুষদের সঙ্গে প্রতারনায় করায় জরিনা আকতার (৩২) নামের এক ভুয়া ইউএনওকে গ্রেফতার হয়েছেন। গ্রেফতারকৃত জরিনা আকতার গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়নের তেরোপাখি গ্রামের বিকুল ইসলামের স্ত্রী।

জানা গেছে, উপজেলার তেরোপাখি গ্রামের বিকুল ইসলামের স্ত্রী জরিনা আকতার নিজেকে গাবতলীর ইউএনও পরিচয় দিয়ে নেপালতলী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম থেকে অসহায় গরীব মানুষদের কাছ থেকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন। কাউকে সরকারি চাকুরী দেয়া, কাউকে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহারের ঘর, কাউকে এনজিও থেকে সহজেই লোন পাইয়ে দেয়া আবার কাউকে ভিজিএফ এর কার্ড করে দেয়ার কথা বলে এই টাকাগুলো নেয়। দীর্ঘদিনেও ভূয়া ইউএনও জরিনার কাছ থেকে ভুক্তভোগীরা কোন সুফল না পাওয়ায় গত ৫ই মার্চ গাবতলীর ইউএনও রওনক জাহানের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করেন। এরই প্রেক্ষিতে ইউএনও রওনক জাহান ভুক্তভোগী ও অভিযুক্তদের সোমবার তাঁর কার্যালয়ে এনে নিবিড়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।


জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে জরিনা আকতার স্বীকার করে বলেন, তিনি নেপালতলী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য আজিজুল হক জিন্না ও তেরোপাখি গ্রামের মৃত ওছমান আকন্দের ছেলে মজনু আকন্দ (৫৪) এর পরামর্শে ও আর্থিক লোভে পড়ে তিনি নিজেকে গাবতলীর ইউএনও পরিচয় দিয়ে ৮জনের কাছ থেকে নগদ ও মোবাইল ফোনে ২টি সিমের মাধ্যমে টাকাগুলো নিয়েছেন। পরবর্তীতে ওই দুটি সিম আজিজুল হক জিন্না ও মজনু আকন্দ কৌশলে জরিনার কাছ থেকে নিয়ে নেয়। বিনিময়ে জরিনাকে মাত্র ৫০হাজার টাকা দিয়েছে জিন্না ও মজনু। তবে ইউএনও অফিসে জরিনার দেয়া সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মজনু আকন্দ।

এ ব্যাপারে গাবতলীর ইউএনও রওনক জাহান বলেন, সরকারি চাকুরি, সরকারি পাকাঘরসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেয়ার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে জরিনা আকতার ৮জনের কাছ থেকে মোট ৪লাখ ৩৩হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাই অভিযুক্ত জরিনা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।


তবে স্থানীয়রা জানিয়েছে, শুধু ৮জন নয়, জরিনা আকতার অনেকের কাছ থেকেই লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জামিরুল ইসলাম বলেন, প্রতারনার স্বীকার নেপালতলী ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের বিজয় চন্দ্র রায়ের ছেলে বিপ্লব দাস বাদী হয়ে জরিনা আকতারকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতারকৃত জরিনাকে আজ আদালতে প্রেরণ করা হবে।


Facebook Comments Box

Posted ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২২ মার্চ ২০২২

Alokito Bogura। Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

সম্পাদক ও প্রকাশক:

এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ

বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ

অস্থায়ী অফিস:

তালুকদার শপিং সেন্টার (৩য় তলা),

নবাববাড়ি রোড, বগুড়া-৫৮০০।

বার্তাকক্ষ যোগাযোগ:

মুঠোফোন: ০১৭৫০ ৯১১ ৮৪৫

ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!