শুক্রবার ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

ইঁদুরের গর্তের ধান কুড়িয়ে শিতের পিঠা-পুলির সাধ মিঠাবে সারিয়াকান্দির আজিফা

মাইনুল হাসান, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার   শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০২২
342 বার পঠিত
ইঁদুরের গর্তের ধান কুড়িয়ে শিতের পিঠা-পুলির সাধ মিঠাবে সারিয়াকান্দির আজিফা

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে সোনালী আমন ধান কাটা শুরু হয়েছে। মাঠে মাঠে আমন ধান কাটার ব্যস্তসময় পার করছে চাষিরা। বাড়িতে কৃষাণীরা কাটা-মাড়াই, ধান সিদ্ধ-শুকানোর কাজে ফুসরত পাচ্ছেন না। সবার বাড়িতে আমন ধানের মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত হয়েছে। জমি-জমা না থাকাই যারা আমন ধান করতে পারেন নি তারা পরেছেন চিন্তায়। এরকম একটি পরিবার সরিয়াকান্দি উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের বড়ইকান্দি গ্রামের মৃত মুনু জায়দারের স্ত্রী আজিফা বেওয়া (৫৫) এর। আজিফা বেওয়া কেটে নেওয়া ধানের জমি থেকে পরে থাকা ও ইদুরের গর্ত থেকে ধান সংগ্রহ করে হলেও নাতি-পুতিদের পিঠা-মুঠা খাওয়াবেন। এমন আশা নিয়ে তিনি মাঠে মাঠে ওই ভাবে ধান সংগ্রহ করে চলেছেন দিনভর।

জানা গেছে, ওই আজিফা বেওয়ার স্বামী মারা গেছেন প্রায় ৮ বছর পূর্বে। জমি-জমাও নেই তার। যেখানে ধানের আবাদ করে আমন ধান সংগ্রহ করবেন তিনি। বাড়ির জায়গাটুকুই তার একমাত্র সম্বল। পরনে ছেড়া কাপড় নিয়ে ঘুরছেন ধান কাটার মাঠে মাঠে। জমিতে ঝাড়ু- দিয়ে ধান সংগ্রহ করছেন তিনি। এছাড়াও ইদুরের গর্তে হাত দিয়ে নিয়ে যাওয়া ধান সংগ্রহ করছেন। এরকম কাজে সাপ-পেকামাকড়ের ঝুঁকি জেনেও তাতে কোন ভয় লাগে না তার।


আজিফা বেওয়া বৃহস্পতিবার আলোকিত বগুড়া’র প্রতিবেদককে বলেন, আমার স্বামী মারা যাওয়ার পর আমি খুব অসহায় হয়ে পড়ি। ৩ মেয়ে ২ ছেলেকে নিয়ে আমার সংসার। এর মধ্যে আবার তাদের ছেলে-মেয়ে অথ্যাৎ আমার মোট নাতি-পুতি রয়েছে সবমিলিয়ে ৯জন। ছেলেরা অন্যের দোকানে কাজ করে। যে মাইনে পায় তা দিয়ে তাদের দিন যাওয়াই কঠিন। নাতি-পুতিদের অগ্রহায়ন মাসের শীতের পিঠা-পুলি খাওয়ানোর সাধ্য তাদের নেই। যার জন্য আমি মাঠে-মাঠে এই ভাবে ধান সংগ্রহ করছি। তিনি আরোও বলেন, দিনে কম করে হলেও ৮ থেকে ৯ কেজি করে ধান পেয়ে থাকি আমি। ধান কাটার মৌসুম জুড়ে ওই ভাবে ধান সংগ্রহ করতে পারলে কমপক্ষে মন তি’নেক ধান সংগ্রহ করতে পারবো আমি। তা দিয়ে নতুন ধানের ভাত ছাড়াও নাতি-পুতিদের শীতের পিঠা-মুঠো খাওয়ানোর সাধ মিটবে আমার।

উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো: কুদরত আলী আলোকিত বগুড়া’কে বলেন, ইঁদুর আমাদের একটা ফসলের বড় শত্রু। ইঁদুর ৩ থেকে ১০ ভাগ পর্যন্ত ফসল নষ্ট করে থাকে। ধান ও গমের আবাদের ইঁদুরের উপদ্রুপ বেশী থাকে। গ্রামের অনেক শিশু-কিশোর এমনকি বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা পর্যন্ত ধান সংগ্রহ করে সংসারের অন্ন সংস্থান করে থাকেন। এরকম পরিবারের প্রতি আমাদের পক্ষ থেকে সাহায্যে সহযোগিতা ছাড়াও সাধুবাদ থাকবে।


Facebook Comments Box


Posted ২:৪০ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০২২

Alokito Bogura || Online Newspaper |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯  

উপদেষ্টা:
শহিদুল ইসলাম সাগর
চেয়ারম্যান, বিটিইএ

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রকাশক:
এম.টি.আই স্বপন মাহমুদ
বার্তা সম্পাদক: এম.এ রাশেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক: মোঃ সাজু মিয়া

বার্তা, ফিচার ও বিজ্ঞাপন যোগাযোগ:
+৮৮০ ১৭ ৫০ ৯১ ১৮ ৪৫
ইমেইল: alokitobogura@gmail.com

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন কর্তৃক নিবন্ধিত।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!